অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ওপেন বর্ডার থাকবে

July 15, 2017, 10:49 a.m. অর্থনীতি

ন্নয়ন ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ওপেন বর্ডার থাকবে। দু’দেশের মধ্যে বিনিয়োগ, আমদানি-রপ্তানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে।

অর্থনীতি প্রতিবেদক:
বাংলাদেশের এলপিজির চাহিদা পূরণে লাফ গ্যাস সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। লাফ গ্যাস কোম্পানির ন্যায় শ্রীলঙ্কার কোম্পানিকে বাংলাদেশে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁও এ শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতির সম্মানে লাফ গ্যাস বাংলাদেশের আয়োজনে নৈশ্যভোজে বক্তারা এ আহ্বান জানান।

শ্রীলঙ্কান এলপিজি কোম্পানি লাফ গ্যাস বাংলাদেশ লিমিটেডের আয়োজনে নৈশ্যভোজে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি মাইথ্রিলা সিরিসেনাসহ শ্রীলঙ্কা সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শ্রীলঙ্কার অর্থনীতির বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। এছাড়া শ্রীলঙ্কার এলপিজি কোম্পানি লাফ কোম্পানির বিভিন্ন দিকও তুলে ধরে।

তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে কঠোর পরিশ্রম করছে। এদেশে ১৩ কোটি মানুষ মোবাইল ব্যবহার করে। এরমধ্যে সাত কোটি মানুষ ইন্টারেনট ব্যবহার করে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। দেশের সর্বক্ষেত্রে ডিজিটালের ছোঁয়া লেগেছে।

তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কার বড় কয়েকটি কোম্পানি বাংলাদেশে হাইটেক পার্কে বিনিয়োগ করছে। শ্রীলঙ্কার অন্যান্য কোম্পানিকে বাংলাদেশে বিনিয়োগে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

লাফ গ্যাস বাংলাদেশ লিমিটেডের চেয়ারম্যান ডব্লিউ কে এইচ ওয়েগাপিটিয়া বলেন, ভোক্তার দোরগোড়ায় লাফ গ্যাস সহজলভ্য করার পাশাপাশি  গুণগতমান ধরে রাখাই হবে আমাদের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, বিপুল চাহিদার কথা মাথায় রেখে দেশীয়ভাবে সিলিন্ডার উৎপাদন করে সাশ্রয়ী মূল্যে যাতে গ্রাহকের হাতে তুলে দেওয়া যায়। সে লক্ষ্যে নিয়ে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার তৈরির কারখানা নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করছে লাফ গ্যাস বাংলাদেশ।

তিনি আরও বলেন, লাফ গ্যাস বাংলাদেশে বিনিয়োগের মাধ্যমে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরও জোরদার হবে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার মধ্যে খাদ্যাভাস একই। দুদেশের ভাষাও এসেছে সংস্কৃত ভাষা থেকে। শ্রীলঙ্কা এখন অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দ্রুত অগ্রসর হচ্ছে।

তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কা মানসম্পন্ন বিনিয়োগ ও উন্নয়ন করছে। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা একে অপরের সহযোগিতায় এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশে বিনিয়োগের যথেষ্ট পরিবেশ রয়েছে। শ্রীলঙ্কার কোম্পানিকে বাংলাদেশে আরও বেশি বিনিয়োগের আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের জ্বালানি খাতকে আরও সমৃদ্ধ করতে বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সরকার।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, শ্রীলঙ্কা বিশ্বের মধ্যে জ্ঞানভিত্তিক অর্থনৈতিক দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তারা আইটি খাতে এগিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার মান উন্নত হচ্ছে। তাদের অর্থনীতিসহ সব দিক বাংলাদেশ অনুসরণ করে থাকে।

তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কাসহ প্রতিবেশি দেশগুলোর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এলপিজিকে জনপ্রিয় করতে কাজ করছে সরকার। বিকল্প জ্বালানি হিসেবে আগামীতে এলপিজি গৃহস্থালিসহ যানবাহন ও শিল্প খাতে ব্যাপকভাবে ব্যবহারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাভি কারুনানায়েকে বলেন, উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ওপেন বর্ডার থাকবে। দু’দেশের মধ্যে বিনিয়োগ, আমদানি-রপ্তানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে। লাফ শ্রীলঙ্কার একটি স্বনামধন্য কোম্পানি। এ কোম্পানিসহ শ্রীলঙ্ককার অন্যান্য কোম্পানি বাংলাদেশে বিনিয়োগে এগিয়ে আসবে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম, এফবিসিসিআইয়ের সহ সভাপতি মুনতাকিম আশরাফ সহ ব্যাবসায়ী প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বক্তব্য শেষে শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেন।

 

কারুনিউজ/১৫জুলাই/আইআইজেড

blog comments powered by Disqus