ডিসিসিআই এবং ইউএনডিপি-বাংলাদেশ আয়োজিত “ইমপ্যাক্ট বাংলাদেশ ফোরাম ২০১৭”-এর সমাপনী সেশন অনুষ্ঠিত

Oct. 29, 2017, 10:40 p.m. অর্থনীতি


ইমপ্যাক্ট বাংলাদেশ ফোরাম ২০১৭” সমাপনী অনুষ্ঠান ২৯ অক্টোবর, ২০১৭ তারিখের রাজধানীর রেডিসন হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়

মনিরুল ইসলাম: ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) এবং ইউএনডিপি-বাংলাদেশ যৌথভাবে আয়োজিত “ইমপ্যাক্ট বাংলাদেশ ফোরাম ২০১৭” সমাপনী অনুষ্ঠান ২৯ অক্টোবর, ২০১৭ তারিখের রাজধানীর রেডিসন হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়। সমাপনী সেশনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সমাপনী সেশনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

 

সমাপনী সেশনের প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, এমপি বলেন, বর্তমান সরকারের যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণের ফলে সারাদেশে আইটিসি বিপ্লব শুরু হয়েছে এবং বর্তমানে আমরা তথ্য-প্রযুক্তির যুগে বসবাস করছি। তিনি জানান, অন-লাইনের মাধ্যমে পেমেন্ট কার্যক্রম চালু হওয়ার ফলে উক্ত খাতে প্রায় ৭৫% ব্যয় হ্রাস পেয়েছে। তিনি আরোও বলেন, স্বাস্থ্য খাতের প্রভৃত উন্নয়নে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবস্থা গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা রেখেছে। অর্থমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, আগামী ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ “আইসিটি টাইগার”-এ পরিণত হবে।

 

সমাপনী সেশনের বিশেষ অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ পরিণত করার লক্ষ্যে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করে, যার ফলে বর্তমানে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী সংখ্যা প্রায় ৮ কোটি এবং ৮ বছর পূর্বে এ সংখ্যা ছিল ১ মিলিয়ন। তিনি বলেন, সরকার ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের সব ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে ইন্টারনেট সংযোগ প্রদান করবে এবং ২০২১ সালের মধ্যে এ খাতে প্রায় ২ মিলিয়ন দক্ষ জনশক্তি তৈরির লক্ষ্যে বিভিন্ন মেয়াদে প্রশিক্ষণ প্রদান করবে। তিনি দেশের উদ্যোক্তাবৃন্দ কে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে এগিয়ে আসার আহবান জানান। মন্ত্রী আরোও জানান, ২০২১ সালের মধ্যে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে ১০,০০০ নতুন পণ্য তৈরির লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছে।  

 

কারুনিউজ/২৯অক্টোবর/এমআই