"বাংলা টিভির লাগাতার চেক জালিয়াতি চলছে" শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

Dec. 8, 2017, 7:05 p.m. বিনোদন


'প্রতিবাদ পাবার ৩ দিনের মধ্যে প্রকাশের অনুরূপ গুরুত্ব দিয়ে সংবাদটি প্রত্যাহার করতে'। নতুবা মানহানীর মামলা সহ ক্ষতিপূরণ দাবী করার অধিকার বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষের থাকবে।

গত ২১-১১-২০১৭ ইং তারিখে কারুনিউজ২৪.কম এ প্রকাশিত "বাংলা টিভির লাগাতার চেক জালিয়াতি চলছে" শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষ। গত ৪-১২-২০১৭ ইং তারিখ বাংলা টিভি'র পক্ষে মানব সম্পদ ও প্রশাসন বিভাগের ব্যবস্থাপক মাহফুজুল ইসলাম চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠিতে এই প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদ লিপিতে বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষ দাবি করে প্রকাশিত সংবাদটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে প্রকাশ করা হয়েছে । প্রতিবাদ লিপিতে তারা আরও উল্লেখ করেন ‘উঠান’ নাটকের নির্মাতা ‘সিমিত রায় অন্তর’ নিজেই বাংলা টিভির সাথে চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করেছেন। এব্যাপারে সিমিত রায় অন্তরের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের কথাও জানান বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষ। চিঠিতে অনুরোধ করা হয়, 'প্রতিবাদ পাবার ৩ দিনের মধ্যে প্রকাশের অনুরূপ গুরুত্ব দিয়ে সংবাদটি প্রত্যাহার করতে'। নতুবা মানহানীর মামলা সহ ক্ষতিপূরণ দাবী করার অধিকার বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষের থাকবে।

কারুনিউজ২৪.কম এর বক্তব্য

প্রকাশিত সংবাদটি সিমিত রায় অন্তর এর অভিযোগের ভিত্তিতে করা। প্রতিবাদলিপিটি কর্তৃপক্ষে হাতে আসার পর আবারো যোগাযোগ করা হয় সিমিত রায় অন্তর’র সাথে। জানা যায় গত ৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলা টিভির চেক ক্যাশ করাতে পারেন নি তিনি। অন্যদিকে শর্তভঙ্গের ব্যপারে জানতে চাইলেও সিমিত জানান, চুক্তিভাঙ্গার ব্যপারে বাংলা টিভির বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যে।

এছাড়া বাংলা টিভির যে সাবেক কর্মীরা তাদের চেক এখনো ভাঙ্গাতে পারেন নি, তাদের সাথে যোগাযোগ করেও জানা যায়, চেক এখনো ভাঙ্গাতে পারেননি তারা। ইতিমধ্যে সাবেক কয়েকজন কর্মীর চেক কারুনিউজ’র হাতে এসেছে।

এখানে আরো উল্লেখ্য যে, বাংলাটিভি কর্তৃপক্ষ সিমিত রায় অন্তরের চেক জালিয়াতির অংশ টুকুর প্রতিবাদ জানালেও সংবাদটির অপর অংশ ‘বাংলা টিভির কর্মচারীদের বেতন নিয়ে টালবাহানা ও চেকের তারিখ পরিবর্তন, এমডি এবং ডিরেক্টর’র চেক জালিয়াতির জন্য জেলখাটা এবং লন্ডনের বাংলা টিভি বন্ধ হওয়া’র সংবাদ নিয়ে কোন প্রকার প্রতিবাদ বা মন্তব্য করেননি। কাজেই ধরেই নেয়া যায় বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষ আংশিক ভাবে সংবাদটির সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন। তাই সংবাদটিকে আর মিথ্যে, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত মেনে নেবার কারণ পাওয়া যাচ্ছে না।

সেই সাথে বাংলা টিভি কর্তৃপক্ষের প্রেরণ করা প্রতিবাদ লিপিতে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক একাধিক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নির্মাতা রিয়াজুল রিজুর নামের স্থলে রিয়াজুল রাজু লেখার তীব্র নিন্দা জানাই।

আগের সংবাদটি:

বাংলা টিভির লাগাতার চেক জালিয়াতি চলছে